৩০ শ্রাবণ ১৪২৫, বুধবার ১৫ আগস্ট ২০১৮, ৩:০৩ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

পল্লবীতে নক্ষত্রের পতন


১৬ জুলাই ২০১৮ সোমবার, ০৫:০৯  পিএম

ইউসুফ আহমেদ তুহিন

নতুনসময়.কম


পল্লবীতে নক্ষত্রের পতন

রাজধানীর পল্লবী থানা থেকে মিরপুর থানার ওসি হিসেবে বদলী হয়ে গেলেন ওসি দাদন ফকির। গত সাড়ে ৩ বছর সময় ধরে পল্লবী থানায় থাকা কালীন সময়ে অমূল পরিবর্তন করেছেন পল্লবী থানার। তার আগে পল্লবী থানা এলাকা ছিল মাদক স্পটের জন্য বিখ্যাত। কিন্তু, ওসি দাদন ফকিরের সময় এই অপবাদ থেকে পল্লবী থানার মুক্তি মিলিছে।

তিনি সকল মাদক স্পট উচ্ছেদ করেছেন। বর্তমানে পল্লবীতে কোন মাদক স্পটের অস্তিত্ব নেই। খুচরা মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধেও নিয়োমিত অভিযান পরিচালনা করতেন তিনি।

মিরপুরের অন্যান্য থানা এলাকা গুলোর মতো পল্লবীতে মাসহারা দিয়ে কোন পতিতা ব্যবসা তিনি করতে দেননি।

পল্লবীর সবচেয়ে বড় সমস্যা ছিল বিহারী সমস্যা। সেই সমস্যাও তিনি খুব শক্ত হতে সমাধান করেছেন। তার সময়ে বিহারীদের কোন উৎপাত সহ্য করতে হয়নি।

তার সময়েই পল্লবী থানার নিজস্ব ভবনের কাজ শুরু করেছেন। রাজনৈতিক নেতাদের সাথে যুদ্ধ করে পল্লবী থানার জন্য নিজস্ব জায়গা তিনি আদায় করে নিয়েছেন।

ওসি দাদন ফকিরের সময়ে রাজনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করে কোন অন্যায় পল্লবী থানায় কেউ করতে পারেনি। যে কোন সাধারণ মানুষের জন্য তার দরজা খোলা ছিল। বরং, কেউ কোন বড় অফিসার বা রাজনৈতিক নেতার রেফারেন্স দিলে তিনি বিরক্ত হয়ে বলতেন, রেফারেন্স দিবেন না। আপনার সমস্যার কথা বলুন।

এক সময়ের সন্ত্রাসের জনপদ পল্লবী ওসি দাদন ফকির আসার আগেই অনেকটাই সন্ত্রাস মুক্ত হয়েছিল। কিন্তু, তিনি ওসি হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করার কারণে পল্লবী এলাকায় বর্তমানে প্রকাশ্যে সন্ত্রাসীদের উৎপাত নেই।

পুলিশের চাকরীর নিয়ম অনুযায়ী বদলী হয়ে গেলেন ওসি দাদন ফকির। নতুন ওসি দায়িত্ব নিচ্ছেন কাল বা পরশু। আশা করব, পল্লবীতে আবার মাসহারা দিয়ে মাদক স্পট শুরু হবে না। মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী, রাজনৈতিক ক্ষমতার অপব্যবহার আবার নতুন করে শুরু হবে না। এই আশাই শুধু করতে পারি।

নতুন ওসি`র জন্য একটি স্বচ্ছ পল্লবী থানা রেখে গেছেন। আশা করব দাদন ফকিরের দেখিয়ে দেওয়া পথ অনুযায়ী নতুন ওসিও পল্লবীকে শক্ত হাতে নিয়ন্ত্রণ করবেন।

ওসি দাদন ফকির বদলী হয়ে যাওয়াতে মাদক ব্যবসায়ীরা বেজায় খুশী। অনেক মাদক ব্যবসায়ী গোপনে মিষ্টি বিতরণ করেছে।

দাদন ফকিরের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তিনি কর্কষভাষী। কিন্তু, মিষ্টিভাষী ওসি হলে পল্লবী নিয়ন্ত্রণ করা কোন ভাবেই সম্ভব ছিল না। তিনি ছিলেন পল্লবী এলাকার নক্ষত্রের মতো। তার বদলীতে যেন পল্লবীতে নক্ষত্রের পতন হলো।

লেখক-সমাজকর্মী

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: