৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ১৭ নভেম্বর ২০১৭, ১১:৪৩ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

সৌদিতে প্রক্রিয়াজাত খাদ্যপণ্যের মেলা


১৪ নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার, ০৫:৩৬  পিএম

নতুনসময়.কম


সৌদিতে প্রক্রিয়াজাত খাদ্যপণ্যের মেলা

পঞ্চম বারের মতো শুরু হয়েছে প্রক্রিয়াজাত খাদ্যপণ্য নিয়ে ‘ফুডেক্স সৌদি আরব ২০১৭’ মেলা।

সোমবার বিকেল থেকেই মেলায় দর্শনার্থীদের সমাগম শুরু হয়েছে। সন্ধ্যায় জেদ্দাস্থ আন্তর্জাতিক প্রদর্শন কেন্দ্রের মেলার ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সৌদি আরবের রাজ পরিবারের সদস্য প্রিন্স খালেদ বিন আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজ আল সউদ।

মেলায় উপস্থিত ছিলেন সৌদি আরবের নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ্। বাংলাদেশ থেকে আগত অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজি সফিকুল আজম , রপ্তানি উন্নয়ন বোর্ডের যুগ্ন সচিব মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন, রিয়াদ দূতাবাসের ইকোনমিক কাউন্সিলর ড. আবুল হাসান, প্রেস উইং এর কনসাল ফখরুল ইসলাম, জেদ্দাস্থ কনস্যুলেটের কনসাল মোস্তফা জামিল, কনসাল মুজিবুর রহমানসহ প্রবাসী ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রতিনিধিগণ।

এবারের মেলায় প্রবাসের মাটিতে বাংলাদেশের রপ্তানিকৃত খাদ্য জাতীয় পণ্য সামগ্রীর গুণগত মান বিদেশিদের কাছে তুলে ধরতেই ইলসন ফুড, প্রাণ, বেঙ্গল, এলিন, ডেনিস, ইফাদসহ বাংলাদেশের ১১টি স্বনামধন্য কোম্পানি অংশ নিয়েছে।

মেলায় বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর উদ্যোগে ৯০ স্কয়ার মিটার জায়গা বরাদ্ধ নেওয়া হয়েছে। সৌদি ফুডেক্স বানিজ্য মেলা ১২ নভেম্বর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে।

এইসময় রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ্ বলেন, ‘বর্তমান সরকার দেশের ক্রমবর্ধমান জনগণের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। সেই সাথে বাংলাদেশের জনগণের চাহিদা মিটিয়ে দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের জন্য বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। সৌদি আরবে ফুড বাজার অনেক ভালো তাই এই দেশে বাংলাদেশি পণ্যের চাহিদা রয়েছে। আমাদের দেশে বিশ্ব মানের ফুড কোম্পানির রয়েছে। তারা যদি এই দেশের বাজার সৃষ্টি করতে পারে আমরাও দেশের পন্য পাব পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করব।

রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, মেলার মাধ্যমে বাংলাদেশের কোম্পানিগুলো তাদের পণ্যের মান যে অন্য দেশের পণ্যের চাইতেও ভালো তা প্রমাণ করতে সক্ষম হবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

মেলায় এই প্রথম অংশ নেওয়া ইলসন ফুড এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর নূরুল ইসলাম বলেন, মেলায় অংশগ্রহণ করতে পেরে অনেক ভালো লাগছে। দেশের গন্ডি পেরিয়ে সৌদি আরবে মাটিতে এই প্রথম আসতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে হচ্ছে। শুনেছি সৌদি আরবের বাজার অনেক ভালো সারাও পাচ্ছি অনেক।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: