৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, সোমবার ২১ মে ২০১৮, ৫:০৬ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবেই বেড়ে চলেছে যানজট


১৩ মে ২০১৮ রবিবার, ১২:৩৪  পিএম

ইমরান খান

নতুনসময়.কম


সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবেই বেড়ে চলেছে যানজট

রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কে দিন দিন যানজট বেড়েই চলেছে। ফ্লাইওভারেও কেউ রেহাই পাচ্ছেন না এ যানজট থেকে। ভোগান্তিতে পড়ছেন সাধারণ মানুষ। অনেকেই বলছেন সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার, মেট্রোরেলের কাজ শুরু হওয়া ও ট্রাফিকে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবেই এ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে বলে মনে করেন ভুক্তভোগীরা।

চাকরির খোঁজে প্রথমবারের মতো ঢাকায় এসেছেব রফিক উদ্দীন। শনিবার দুপুর ১২টায় চাঁদপুর থেকে সদরঘাটে এসে পৌঁছান। বাসে করে রওনা দিলেন মিরপুরের উদ্দেশে। প্রায় ২ ঘণ্টা সময় ব্যয় করে এসে পৌঁছালেন ফার্মগেট। বারবার কনট্রাক্টরকে জিজ্ঞেস করছেন মামা আর কতক্ষণ। শেষমেশ আগারগাঁও এলাকায় নেমে সিএনজি করে গেলেন মিরপুর।

এরকম করেই প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ এই যানজটের শিকার হচ্ছেন। বৃষ্টির দিনে এ ভোগান্তির পরিমাণ অনেকটাই বেড়ে যায়। বিশেষ করে পুরানা পল্টন, কাকলী, মতিঝিল ও মিরপুর এলাকায় হাঁটু পর্যন্ত পানি উঠার কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে বসে থাকতে হয় গন্তব্যগামী মানুষদের।

তাছাড়া রাজধানীর মিরপুর ১২ নম্বর-শেওড়াপাড়া-আগারগাঁও এ পথটুকু পাড়ি দিতে আগে সময় লাগতে আধা ঘণ্টা থেকে পৌঁনে এক ঘণ্টা। এখন সময় লাগছে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা।

মিরপুর ১২ নম্বরের বাসিন্দা জাকির। গণপরিবহনের সবচেয়ে উন্নত বাসে যাতায়াত করেন তিনি। মতিঝিলে অফিসে যাওয়ার উদ্দেশে আগে রওনা দিতেন সকাল ৮টায়। এখন এক ঘণ্টা আগে রওনা দেন। তারপরও অফিসে পৌঁছতে আধা ঘণ্টা, কোনো কোনোদিন এক ঘণ্টাও দেরি হয়। এটা এখন নিত্যদিনের চিত্র। কারণ একটাই- এ সড়কজুড়ে চলছে মেট্রোরেলের কাজ। মেট্রোরেলের কাজ দ্রুত শেষ করতে পারলে এবং ট্রাফিকে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা প্রয়োগ করতে পারলে যানজট অনেকটাই কমে আসবে বলে মনে করেন জাকির।

সরেজমিন দেখা যায়, মিরপুর ১২ নম্বর বাসস্ট্যান্ড থেকে মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বর হয়ে ফার্মগেট, গুলিস্তান ও যাত্রাবাড়ীমুখী যানবাহনে চলাচলরত যাত্রীরা পড়েছেন বিপাকে।
মেট্রোরেলের জন্য এ সড়কের অধিকাংশ স্থানজুড়ে খননকাজ চলছে। এ জন্য দেয়া হয়েছে অস্থায়ী প্রাচীর।

সময় নিয়ন্ত্রণ গাড়িচালক সাহিদ জানান, মেট্রোরেলের কাজের কারণে এ সড়কে যানজট একটি নিয়মিত সমস্য। গাড়ি চালাতেও বেগ পেতে হচ্ছে। ১০ মিনিটের রাস্তায় সময় লাগছে এক ঘণ্টার বেশি। একই গাড়ির যাত্রী মোতাহার বলেন, জ্যামে বসে থাকতে হচ্ছে। তার ওপর ধুলাবালি। অবস্থা এতটাই খারাপ যে, ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। চুপচাপ সহ্য করে যেতে হচ্ছে।

যানজটের পাশাপাশি ধুলাময় এ সড়কে দেখা দিয়েছে তীব্র শব্দদূষণও। উন্নয়নের কর্মযজ্ঞে একপ্রকার অতিষ্ঠ এখানকার মানুষ। তারা দ্রুত এ কাজ সম্পন্নের দাবি জানান।

মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বরে দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট আব্দুস সাত্তার বলেন, যানজট হচ্ছে। এ সড়ক দিয়ে যাদের চলাচল তাদের একটু সময় বেশি লাগছে। দীর্ঘ যানজট যাতে না হয় আমরা সে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। মেট্রোরেলের কাজ শেষ হলে এ সমস্যা আর থাকবে না।

পিডি

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: