৩ পৌষ ১৪২৪, সোমবার ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭, ৩:৩৩ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

সফলতার কথা বলা হলো না মেয়র আনিসুলের


০২ ডিসেম্বর ২০১৭ শনিবার, ১২:১৮  এএম

নতুনসময়.কম


সফলতার কথা বলা হলো না মেয়র আনিসুলের

নিজের কর্মজীবনে বেশ সফল ব্যবসায়ী আনিসুল হক। রাজনৈতিক অর্থাৎ মেয়র হিসেবে তিনি কী সফল। শত বছরের পুরাতন এই নগরে কী পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগাতে পেরেছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র হিসেবে আনিসুল হক।

দায়িত্বের পুরোটা সময় পার না করায় এর সঠিক পরিমাপ/হিসেবটা হয়তো কষ্টকর। কিন্ত এতটুকু বলাই যায় যে, সততা ও জনকল্যাণকর সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে অবিচল এমন ব্যক্তিত্ব কমই আছে।

অবশ্য মেয়র হিসেবে কতটা সফল কিংবা নগরীর কতটা পরিবর্তন করতে পেরেছেন তা নিজ থেকেই বলতে চেয়েছিলেন তিনি। চলতি বছরের জুনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) তৃতীয় বাজেট ঘোষণা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মেয়র বলেছিলেন, ৫ বছর মেয়াদ আমাদের। দুই বছর পার হলো। ডিসেম্বরে আমার আড়াই বছর হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে আনিসুল বলেছিলেন, এ ডিসেম্বরেই নগরবাসী মেজর পরিবর্তন দেখবে। নান্দনিক এক শহর দেখবেন নগরবাসী। অর্ধেক সময় হলে বলা যাবে কতটুকু সফল হয়েছি।

গণমাধ্যমকর্মী হওয়ায় স্বভাবতই আড়াই বছরের বিষয়টি নিজের কর্ম পরিকল্পনায় অন্তর্ভুক্ত রেখেছিলেন এই প্রতিবেদক। এমনকি তখন মেয়রের সঙ্গে সফলতা জানানোর বিষয়ে দু-একটা কথাও হয়েছিল।

এখন ডিসেম্বর মাস। কিন্তু বিধির বিধান, মাসটি শুরু আগের দিন চলে গেলেন মেয়র। বলতে পারলেন না নিজের সফলতার কথা।

তিনি না বললেও, তার গৃহীত কার্যক্রমগুলো কতটা ভালো কিংবা মন্দ তার হিসেব করলেন নগরবাসী।

তেজগাঁও ট্রাক টার্মিনালের সামনের সড়ক দখলমুক্ত করেছেন তিনি। বিমানবন্দর সড়কে যানজট কমাতে মহাখালী থেকে গাজীপুর পর্যন্ত সড়কে ইউলুপ করার উদ্যোগ নেন আনিসুল হক। এরইমধ্যে মহাখালী থেকে উত্তরা পর্যন্ত ১১টি ইউটার্ন নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে।

ঢাকার খালগুলো উদ্ধারে সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছিলেন আনিসুল হক। তার নির্দেশে বনানীর ২৭ নম্বরে যুদ্ধাপরাধী মোনায়েম খানের বাড়ি ‘বাগ এ মোনয়েম’র অবৈধ দখলে থাকা অংশ উদ্ধার করে সড়ক প্রশস্ত করা হয়েছে।

ফুটপাত দখলমুক্ত করা ও নান্দনিক শহর গড়তে আরো বেশ কিছু উদ্যোগও নিয়েছিলেন তিনি।

এগুলোর হিসেব করলেই জানা যাবে কতটা সফলতা মেয়র আনিসুল হক।

রাজনীতির মাধ্যমে মেয়রের দায়িত্ব আসা আনিসুল জনগণের কল্যাণের জন্য কিন্তু দলীয় ব্যক্তিদের ছাড় দিতেন না। বেশ কয়েকটি উচ্ছেদ অভিযানে এর প্রমাণ পাওয়া গেছে। বরাবরই বিনয় ও বিচক্ষণতার সাথে বাধা অতিক্রম করেছেন তিনি।

অবশ্য কয়েকটি জায়গায় থমকে দাঁড়াতে হয়েছিল তাকে। হয়তো এগুলোই পরবর্তী আড়াই বছরে সমাধানের পরিকল্পনা করেছিলেন তিনি।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: