৫ কার্তিক ১৪২৪, শুক্রবার ২০ অক্টোবর ২০১৭, ১১:৪৮ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

শীর্ষ ব্যক্তিদের নির্দেশে বিএনপি মহাসচিবের ওপর হামলা


১৯ জুন ২০১৭ সোমবার, ০৩:৫৭  পিএম

নতুনসময়.কম


শীর্ষ ব্যক্তিদের নির্দেশে বিএনপি মহাসচিবের ওপর হামলা

রাজনৈতিক ভদ্রতার নিয়ম-কানুন মানা আওয়ামী লীগের ঐতিহ্যে নেই মন্তব্য করে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, আওয়ামী লীগ সন্ত্রাস আর গুণ্ডামীকেই নিজেদের জীবনে-আচরণে-কর্মক্ষেত্রে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছে।

তিনি বলেন, আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আওয়ামী সরকারের শীর্ষ ব্যক্তিদের নির্দেশেই বিএনপি মহাসচিবসহ নেতৃবৃন্দের ওপর  ন্যাক্কারজনক হামলা চালানো হয়েছে।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রিজভী আহমেদ।

তিনি বলেন,  গুণ্ডামীর এই নবসংস্করণ জনসমর্থন ছাড়া দুঃশাসন টিকিয়ে রাখারই ইঙ্গিতবহ। গণতন্ত্রের সর্বশেষ অস্তিত্বকে ছিন্নভিন্ন করে দেওয়ার জন্যই এটি একটি সহিংস আগ্রাসী পদক্ষেপ। এরা বিরোধী দলের মানবকল্যাণধর্মী সমাজসেবামূলক কর্মসূচিকেও বানচাল করতে হিংস্র আক্রমণ চালায়।

রিজভী আহমেদ বলেন, ‘গণবিচ্ছিন্ন হওয়ার কারনে এক অজানা ভয় থেকে আওয়ামী লীগের মনস্তাত্বিক আবহাওয়া বদলে গেছে। সেখানে পতনের আশঙ্কায় তারা উ™£ান্ত গুন্ডামীতে নেমে পড়েছে। এখন সবকিছু হারিয়ে আওয়ামী লীগ শেষ ভরসা হিসেবে গুন্ডা রাজত্ব কায়েম করতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে। ’

জনগণের সাথে আওয়ামী লীগের সম্পর্ক যেন সতীনের সংসারের মতো। উল্লেখ করে বিএনপির এই  নেতা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ জনগণের ঘোর বিরোধী। দেশের জনগণের প্রতিই যেন আওয়ামী লীগের প্রতিহিংসা। তাই জনগণ কী ভাবলো-সেটিকে তারা পাত্তা দেয় না এবং সেজন্যই অবিরাম দুস্কর্ম চালাতে এদের কোন চক্ষুলজ্জা হয় না। জনগণের সাথে এদের বিবাদ ঐতিহাসিক। গণতন্ত্রকে এরা বাক্সবন্দি করে একদলীয় বাকশাল গঠন বারবার জাতি প্রত্যক্ষ করেছে।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার দু:শাসনের প্রকোপ এখন বিপজ্জনক রুপ ধারণ করেছে। প্রকৃত গণতন্ত্র পূণরুজ্জীবনের জন্য বিএনপিসহ বিরোধী দলসমূহ, বিশিষ্ট নাগরিক সমাজ, নাগরিক স্বাধীনতায় বিশ্বাসী ব্যক্তিবর্গ, মুক্তচিন্তার লেখক, বিবেকবান সাংবাদিক সবাই শেখ হাসিনার চরম রাজনৈতিক আক্রমণের শিকার। এমনিতেই নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের অব্যাহত উর্দ্ধগতিতে মানুষের জীবন এখন অত্যন্ত শীর্ণ, শুণ্য, শ্রীহীন। সেজন্য জনগণের ভিত্তিতলে ভয় ও শঙ্কার ডিনামাইট স্থাপনের মাধ্যমে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে সরকার টিকে থাকতে চায়।’

রিজভী আহমেদ আরও বলেন, ‘নির্বাচন আসার আগেই গুন্ডামী ও সন্ত্রাসকে যেভাবে প্রজনণ করা হচ্ছে তাতে আগামী জাতীয় নির্বাচন শেখ হাসিনার অধীনে হলে অবাধ-সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে কী শোচনীয় বিপর্যয় ঘটবে তা সহজেই অনুমেয়। সেই নির্বাচন হবে একতরফা, সন্ত্রাসকবলিত। ভোটের দিন ও এর পূর্বাপর অবস্থা চরম অরাজকতায় ঢেকে থাকবে। তাই আমরা দ্বিধাহীন কন্ঠে বলতে চাই-শেখ হাসিনার অধীনে কোন নির্বাচনই সুষ্ঠু হবে না। বিএনপি শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাবে না।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন,  চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: