৭ শ্রাবণ ১৪২৫, রবিবার ২২ জুলাই ২০১৮, ৭:০২ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

শিক্ষক নিয়োগের সম্মিলিত মেধাতালিকা প্রকাশ


১০ জুলাই ২০১৮ মঙ্গলবার, ০৯:৫১  পিএম

নতুনসময়.কম


শিক্ষক নিয়োগের সম্মিলিত মেধাতালিকা প্রকাশ

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের সম্মিলিত জাতীয় মেধাতালিকা(শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা প্রথম-১৩তম) প্রকাশ করেছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ(এনটিআরসিএ)।

মঙ্গলবার এনটিআরনিএ’র ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক নোটিশে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের তৈরি করা একটি সফটওয়ারের মাধ্যমে সম্মিলিত বিষয়ভিত্তিক জাতীয় মেধাতালিকা এনটিআরসিএ’র ওয়েবসাইট www.ntrca.gov.bd এবং ngi.teletalk.com.bd তে প্রকাশের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আরও বলা হয়েছে, এনটিআরসিএ’র কার্যক্রমের প্রাথমিক পর্যায়ে নেয়া প্রথম থেকে পঞ্চম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের আবশ্যকীয় তথ্য বাংলায় সংগৃহীত হয়। সম্মিলিত জাতীয় মেধাতালিকা প্রকাশের লক্ষ্যে সম্প্রতি সব প্রার্থীর নামের বানানসহ আবশ্যকীয় তথ্য অনলাইনে ইংরেজিতে নেয়া হলেও তা যাচাই করতে না পারায় অনেকের নামের ঘরটি এখনও শূন্য আছে। সংশ্লিষ্ট সনদধারীরা যাচাই করা তথ্য দিলে পরে তা প্রদর্শন করা হবে।

এর আগে, গত এপ্রিল মাসে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে ৯০ দিনের মধ্যে একটি জাতীয় মেধাতালিকা করার নির্দেশ দেন বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। আজ ছিল তার শেষদিন।

রায়ে বলা হয়, এনটিআরসিএ’র সুপারিশ অনুযায়ী ৬০ দিনের মধ্যে শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। যদি কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সুপারিশ অগ্রাহ্য করে, তবে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটি বাতিলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে শিক্ষা বোর্ড।

আরও বলা হয়, নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের সনদ দিতে হবে। নিয়োগ না হওয়া পর্যন্ত এই সনদের কার্যকারিতা বহাল থাকবে। একইসঙ্গে তিন বছর মেয়াদী যেসব সনদ দেয়া হতো, সেসব বাতিল করা হলো। রায়ের কপি পাওয়ার পর তিন মাসের মধ্যে উত্তীর্ণদের নিয়ে সমন্বিত জাতীয় মেধা তালিকা তৈরি করে তা এনটিআরসিএ’র ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে। শুধু তালিকা প্রকাশ করলেই হবে না তা সকলের কাছে দৃশ্যমান হতে হবে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে এনটিআরসিএ’র নিবন্ধিত সারা দেশে প্রায় ছয় লাখ প্রার্থী চাকরির অপেক্ষায় রয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে শিক্ষক নিবন্ধিত প্রার্থীরা নানাভাবে বঞ্চিত হয়ে এ পর্যন্ত ২৫০টি মামলা করেন। এদিকে সারাদেশে বেসরকারি স্কুল-কলেজে প্রায় ৪০ হাজার শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। এতে দেশের প্রায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই শিক্ষক সংকট দেখা দিয়েছে।

এমএ

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: