১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:০১ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

ভ্রমণপিপাসুদের হাতছানি দিচ্ছে ইনানী


৩০ ডিসেম্বর ২০১৬ শুক্রবার, ০৮:৫৫  পিএম

নতুনসময়.কম


ভ্রমণপিপাসুদের হাতছানি দিচ্ছে ইনানী

 

অপার সম্ভাবনা আর অপরুপ সৌন্দর্যময় পাথুরে বিচ ইনানী ভ্রমণপিপাসুদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে। বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত দেশের সর্বদক্ষিণের জেলা কক্সবাজারে অদূরেই অবস্থিত ইনানী বিচ।

প্রকৃতির অসাধারণ রুপ অবলোকন করতে দেশ-বিদেশ থেকে হাজারো পর্যটক ছুটে আসে ইনানীতে।

পূর্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকা প্রাকৃতিক পাহাড়, পশ্চিমে পাথরে আঁচড়ে পড়া নীল সাগরের বিশাল ঢেউ, সূর্যাস্তের মনোরম দৃশ্য, লাল কাঁকড়াদের হুড়োহুড়ি, সাগরের পাশাপাশি বড়, ছোট খালে জেলেদের মাছ শিকারের দৃশ্য, সবুজ গ্রামের চিত্র এই যেন প্রকৃতির এক অপরুপ মেলবন্ধন, সৌন্দর্য্যের বাহার সাজিয়েছে।

জেলা শহরের কলাতলী হয়ে যাত্রীবাহী বাস, মোটরবাইক, ব্যাটারীচালিত টমটম গাড়িসহ বিভিন্ন যানবাহন নিয়ে মেরিন ড্রাইভ সড়ক হযে ইনানী পাথুরে বিচে আসা যায়। এছাড়াও ব্যাটারিচালিত টমটমে করে মেরিন ড্রাইভের সৌন্দর্য দর্শন করা যায়।

কক্সবাজার থেকে ইনানী ভ্রমণে আসলে পর্যটকদের জন্য দর্শনীয় স্থান হিসেবে রয়েছে দরিয়ানগর, হিমছড়ি ঝর্ণা, বিভিন্ন আন্তর্জাতিকমানের রেস্টুরেন্টের গড়ে তোলা নিজস্ব পার্ক, বিশাল বিশাল সুপারি বাগান, প্রাকৃতিক পাহাড়, দৃষ্টিনন্দন সারি সারি ঝাউবাগান, বিদেশি চিংড়ি উৎপাদনকারী হ্যাচারি।

ইনানী

এছাড়াও ইনানী বিচের অদূরেই পাটুয়ারটেক সি-বিচ। পাটুয়ারটেক সি-বিচের একটু পূর্বে পাহাড়ের নিচে রহস্যময়ী কানা রাজার গুহা। কানা রাজার গুহার পাশেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহাসিক ফইল্লা চাকমার মাচাং ঘর।

দেশি-বিদেশি পর্যটকরা ইনানী বিচে অবকাশ যাপন করতে চাইলেও স্বল্প সংখ্যক আবাসিক হোটেল-মোটেল থাকায় পযর্টকদের ঝামেলা পোহাতে হয় বলে জানান অনেক পর্যটক।

ইনানী বিচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির এক কর্মকর্তা ইনানীর পাথুরে বিচের গুরুত্বারোপ করে বলেন, প্রকৃতির অপরূপ সাজে সজ্জিত নয়নাভিরাম পর্যটন স্পট ইনানী পাথুরে বিচের সৌন্দর্য বাড়াতে কাজ করা হচ্ছে। তিনি সাংবাদিকদের লেখনীর মাধ্যমে ইনানী বিচের সুযোগ সুবিধার বিষয় বিশ্ববাসীকে জানান দেয়ার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ জানান।

এদিকে স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, একটা বিশেষ পর্যটন নীতি প্রণয়ন করে টুরিস্টদের ভিড় কক্সবাজার শহর কেন্দ্র থেকে উপকণ্ঠে সরিয়ে দিতে হবে। ইনানী বিচ এলাকায়ও আকর্ষণ সৃষ্টি করতে হবে।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: