১ শ্রাবণ ১৪২৫, সোমবার ১৬ জুলাই ২০১৮, ৪:৩৮ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

ভিয়ারিয়ালে জালে বার্সার গোলোৎসব


১০ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ১১:২৪  এএম

নতুনসময়.কম


ভিয়ারিয়ালে জালে বার্সার গোলোৎসব

ন্যু ক্যাম্পে বুধবার রাতে গোলোৎসব করেছে বার্সেলোনা। এ জয়ে অপরাজিত থেকে লা লিগা শেষ করার আরো কাছে চলে গেল আগেই শিরোপা জেতা বার্সেলোনা। এখন সবার প্রশ্ন জাগছে এই রেকর্ড কোথায় গিয়ে থামাবে বার্সেলোনা? আর কেই বা তাদের থামাবে?

এমন প্রশ্নের উত্তর বোধ হয় ভালভার্দেকে জিজ্ঞাসা করলেও সঠিক বলতে পারবেন না। বুধবারের জয় নিয়ে টানা ৪৩ ম্যাচে অপরাজিত কাতালানরা। ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে ৫-১ গোলে ব্যবধানে এই জয় নিশ্চিত করে বার্সা। তবে বার্সেলোনার জন্য আসার কথা হলো দারুণ ফর্মে ফেরার আভাস দিয়েছে ফ্রান্সের ওসমানে দেম্বেলে। গতকাল নিজে করেছেন দুইটি পাশাপাশি করিয়েছেন একটি গোল। ভাগ্যে থাকলে তিনি হ্যাটট্রিকই করে ফেলতে পারতেন।

ক্যাম্প ন্যুতে ম্যাচের শুরুতেই বার্সেলোনাকে গার্ড অব অনার প্রদান করে ভিয়ারিয়াল। যদিও এল ক্লাসিকোতে রিয়াল তাদের সম্মান জানায়নি। ক্যাম্প ন্যুতে ম্যাচের আগে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বার্সেলোনা ক্লাবের এবারের মৌসুমের ট্রফি হাতে মাঠে প্রবেশ করেন সেই সব দলের ফুটবলাররা। পাঁচটি ভিন্ন প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় বার্সেলোনার পাঁচটি ভিন্ন দল।

ম্যাচের একাদশ মিনিটেই এগিয়ে যায় বার্সা। যদিও এই গোলে বেশি ভূমিকা ছিল দেম্বেলের। একাই বল টেনে আনেন ভিয়ারিয়ালের বক্সে। গোলমুখে শটও নেন। প্রথম চেষ্টায় গোলরক্ষক ফেরালেও ফাঁকায় দাড়ানো কুতিনহোর শট আটকাতে ব্যর্থ হন গোলরক্ষক। নিজের শেষ চার ম্যাচে চতুর্থ গোল করে বার্সাকে এগিয়ে দেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কুতিনহো।

১৬ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আরেক ব্রাজিলিয়ান পাওলিনহো। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার রক্ষণচেরা পাস ছয় গজ বক্সের বাইরে পেয়ে ডান দিকে বল বাড়ান লুকাস দিনিয়ে। আর তা থেকে অনায়াসেই লক্ষ্যভেদ করে পাওলিনহো। ২০০৪ সালের পর ক্যাম্প ন্যুতে বার্সেলোনার বিপক্ষে ক্লিন শিট না রাখতে পারা দলটি ম্যাচে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালাতে থাকে। কিন্তু সঠিক পরিকল্পনার অভাবে কোনো আক্রমণই আলোর মুখ দেখেনি।

৪১তম মিনিটে দেম্বেলের কাটব্যাক পেয়ে সুযোগ নষ্ট করেন মেসি। পাল্টা আক্রমণে ডিফেন্ডার কস্তার শট পা দিয়ে রুখে দেন বার্সেলোনার দ্বিতীয় পছন্দের গোলরক্ষক ইয়াসপার সিলেসেন। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন বার্সার প্রাণভোমরা মেসি। ডি বক্সের সামান্য বাইরে থেকে ইনিয়েস্তার মাথার উপর থেকে দেয়া পাসে ট্যাপ ইনে নিজের ৩৪তম গোলটি করেন এই আর্জেন্টাইন। বার্সার হয়ে যা তার ৬১৩তম গোল। মৌসুমে ক্লাব এবং জাতীয় দলের হয়ে আর মাত্র দুই গোল করলেই ৫০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করবেন মেসি।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে অন্য বার্সেলোনাকেই দেখে সবাই। ভিয়ারিয়ালের একের পর এক আক্রমণে কোণঠাসা হয়ে পড়ে বার্সার রক্ষণভাগ। বারবার লেফট এন্ড রাইট দিয়ে আক্রমণের ধার বাড়িয়ে ৫৪ মিনিটেই সফলতা পায়া হলুদ জার্সিধারীরা। সানসনের শট বার্সার প্লেয়ারের পায়ে লেগে জালে জড়ালে এক গোল শোধ দেয় তারা। কিন্তু তারপরও থামেনি তাদের দমে থাকা।

৬১ মিনিটে ক্যাম্প ন্যুয়ে শেষবারের মতো খেলতে নামা ইনিয়েস্তাকে তুলে নেন কোচ ভালভার্দে। পুরো স্টেডিয়াম দাঁড়িয়ে অধিনায়ককে শ্রদ্ধা জানায়। বদলি নামেন লুইস সুয়ারেস। ৬৭ মিনিটে ভিয়ারিয়ালের বাক্কার শট নিজের তালুবন্দী করেন জ্যাসপার সিলেসিন।

ম্যাচের ৮৭ মিনিটের সময় নিজের প্রথম ও দলের চতুর্থ গোল করেন দেম্বেলে। ডান দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে একজনকে কাটিয়ে দূরের পোস্টে বল বাড়ান ইভান রাকিটিচ। বিনা বাধায় গোল করেন মৌসুমের শুরুতে দলে আসা তরুণ ফরাসি ফরোয়ার্ড।

ম্যাচের শেষ মুহূর্তে যোগ করা সময়ে একক নৈপুণ্যে নিজের দ্বিতীয় ও দলের পঞ্চম গোলটি করেন দেম্বেলে। মাঝমাঠ থেকে দেম্বেলে দ্রুত গতির দৌড়ে ভিয়ারিয়াল ডিফেন্ডারকে পরাস্ত করে গোলকিপারের মাথার উপর দিয়ে ট্যাপ ইনে বল নির্দিষ্ট ঠিকানায় পাঠান।

পিডি

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: