৮ কার্তিক ১৪২৪, সোমবার ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ১২:০৫ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

ভারতে এবার কি ‘চা-ওয়ালা’ রাষ্ট্রপতি?


১৯ জুন ২০১৭ সোমবার, ০৫:১৭  এএম

নতুনসময়.কম


ভারতে এবার কি ‘চা-ওয়ালা’ রাষ্ট্রপতি?

ভারতের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে দেশের রাজনৈতিক দলগুলো এখন পর্যন্ত নিজেদের পছন্দের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেননি। তবে এরই মধ্য কয়েকজন ফরম কিনেছেন। এর মধ্যে এক প্রার্থীকে নিয়ে অনেকেরই আগ্রহ তৈরি হয়েছে। কারণ, তিনি একজন ‘চা-ওয়ালা’।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও একসময় চায়ের দোকানে কাজ করছিলেন। তাই তাঁকে ‘চা-ওয়ালা’ প্রধানমন্ত্রী বলা হয়। মোদি নিজমুখে সে কথা স্বীকারও করেছেন। সেই পথ ধরে এবার ভারতে রাষ্ট্রপতির দৌড়ে নামলেন আরেক ‘চা-ওয়ালা’।

মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিওরের চা-বিক্রেতা আনন্দ সিং কুশওয়া কোনো বড় চা ব্যবসায়ী নন। সামান্য একজন চা-বিক্রেতা। ১৭ জুলাই পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটের লড়াইয়ের জন্য তিনি মনোনয়ন কিনেছেন। এ নিয়ে চতুর্থবার রাষ্ট্রপতি পদের জন্য মনোনয়নপত্র কিনে জমা দিলেন ৪৯ বছরের আনন্দ কুশওয়া। এর আগে উপরাষ্ট্রপতি, পার্লামেন্টে সদস্য নির্বাচনসহ তিনি মোট ২০টি নির্বাচনে লড়েছেন। তবে, ১৯৯৪ সালের পর থেকে প্রতিটি নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন এবং হেরেছেন এই চা বিক্রেতা।

আনন্দ সিং কুশওয়া এবারের নির্বাচন নিয়ে বেশ আশাবাদী। তিনি এ জন্য উত্তর প্রদেশের এমপি এবং এমএলএ’র সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন। তিনি বলেন, ‘উত্তর প্রদেশের যাঁরা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দেবেন, তাঁদের সঙ্গে আমি নিয়মিত যোগাযোগ করে চলেছি। আমি অতীতে জয়ের জন্য পর্যাপ্ত ভোট পাইনি, কিন্তু এবার আসা করছি।’

রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচনে মনোনয়নের জন্য ৫০ জন ভোটারের সমর্থন দরকার। তা নিয়েই মনোনয়নপত্র জমা দিতে হয়। কুশওয়া বললেন, ‘একজন চা বিক্রেতা যদি ভারতের প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন, তবে কেন আরেকজন চা-ওয়ালা রাষ্ট্রপতি হতে পারবেন না!’

‘চা-ওয়ালা’ কুশওয়ার কোনো গাড়ি নেই। সাইকেলেই চড়েই চলছে নির্বাচনের জোর প্রচার চালাচ্ছেন তিনি। নির্বাচনে লড়াই করার জন্য প্রতিদিন অর্থও জমাচ্ছেন তিনি। ২০১৪ সালে লোকসভা নির্বাচনের সময় জমা দেয়া হলফনামা অনুসারে কুশওয়ার কাছে স্থাবর-অস্থাবর মিলিয়ে মোট সম্পত্তির পরিমাণ ১৫ হাজার রুপি।

ভারতের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে ১৭ জুলাই। গণনা ২০ জুলাই। প্রার্থী মনোনয়নের শেষ তারিখ ২৮ জুন। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য ১ জুলাই পর্যন্ত সময় পাওয়া যাবে।

নির্বাচন সামনে রেখে কয়েকজনের নাম শোনা গেলেও রোববার পর্যন্ত সরকারি কিংবা বিরোধী দল কেউই তাদের পছন্দের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেনি। ইন্ডিয়া ডটকম।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: