১ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ১৭ আগস্ট ২০১৭, ৫:২৮ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ, স্বস্তিতে সবজির বাজার


১১ আগস্ট ২০১৭ শুক্রবার, ১২:৫৭  পিএম

সালেহ উদ্দিন সোহেল

নতুনসময়.কম


বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ, স্বস্তিতে সবজির বাজার
ছবি- নতুন সময়

গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে এক লাফে দ্বিগুণের কোটায় পেঁয়াজের দাম! সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে মসলার দামও। তবে কিছুটা স্বস্তিতে সবজির বাজার।

রাজধানীর বেশ কয়েকটি কাঁচা-বাজার ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। পেঁয়াজ-মসলার ঊর্ধ্বগতিতে হতাশ নিম্নআয়ের মানুষ।

শুক্রবার রাজধানীর কাপ্তানবাজার, ফকিরেরপুল কাঁচা-বাজার,যাত্রাবাড়ী কাঁচা-বাজার ও জুরাইন কাঁচা-বাজার ঘুরে দেখা যায়, গত দুই সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে দ্বিগুণেও বেশি। ১৫ দিন আগে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হতো যেখানে ২৫ টাকা কেজি দরে,শুক্রবার তা বিক্রি হচ্ছে ৫৫ টাকা কেজিতে।

এছাড়া ১২৮০ টাকার এলাচি বিক্রি হচ্ছে ১৩৭০ টাকা দরে। জিরা কেজিপ্রতি ৩০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩৮০ টাকা কেজি দরে। এছাড়া এক সপ্তাহের ব্যবধানে দারুচিনিতে বেড়েছে ২০ টাকা। লবঙ্গের দাম কেজিতে বেড়েছে ৯০ টাকা। পেঁয়াজের সঙ্গে পাল্লা দিয়েছে রসুন। রসুন কেজিতে বেড়েছে ২০ টাকা। আর আদা কেজিতে বেড়েছে ৩০ টাকা। আদা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। রসুন প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে, ১২০ টাকায়।

ঈদের বাজারে মসলায় পাইকারদের কারসাজি হিসেবে দেখছেন ক্রেতারা। তবে খুচরা দোকানিদের দাবি, ভারী বৃষ্টিতে পেঁয়াজের ফলনে ব্যাঘাত আর ঈদ বাজারে মসলার আমদানি কম।

কথা হয়, যাত্রাবাড়ী বাজারের শিপন আহমেদ নামে এক ক্রেতার সঙ্গে। তিনি বলেন, ঈদ আসলেই পেঁয়াজ, আদা, রসুন ও মসলার দাম দোকানিরা বাড়িয়ে দেয়। এটা কৃত্রিম সংকট ছাড়া আর কিছুই না।

অসাধু সিন্ডিকেট বন্ধ করতে পারলে দাম বাড়বে না বলে জানান এই ক্রেতা। তাহলে স্বস্তিতে ফিরবে ঈদমুখী মসলার বাজার।

যাত্রাবাড়ীর মসলার খুচরা ব্যবসায়ী আল-আমিন নতুন সময়কে বলেন,সরবরাহ কম থাকলে ইন্ডিয়ান পেঁয়াজের দাম বাড়ে। আমরা বেশি দামে কিনলে বেশি বেচতে হবে, এটাই স্বাভাবিক।

তিনি বলেন,আমরা খুচরা ব্যবসায়ীরা রয়েছি দ্বিমুখী বিপাকে।

এদিকে, সারাদেশে ভারী বর্ষণ ও জলাবদ্ধতা থাকলেও সবজির দাম তেমন বাড়েনি। তবে বেগুন ক্ষেতে জলাবদ্ধতা। সে কারণে বেগুনের ফলন ব্যাহত হয়েছে। গত দুই সপ্তাহে রাজধানীতে বেগুনের সরবরাহ কম। তাই, বেগুনের দাম বেড়েছে চোখে পড়ার মতো। প্রতি কেজি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়,যা আগে ছিল ৫০ টাকা কেজি দরে। এছাড়া আলু প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা, শসা ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৪০ টাকা, কাঁচামরিচ ১২০ টাকা,করলা ৬০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, কাকরোল ৫০ টাকা,গাঁজর ৫০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, সিম ১০০ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা,বরবটি ৫০ টাকা ও কচুর আঁটি ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

জুরাইন কাঁচাবাজারের সবজির ব্যবসায়ী হুমায়ুন নতুন সময়কে বলেন, সবজির দাম গত এক মাসে তেমন একটা বাড়েনি।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: