৮ কার্তিক ১৪২৪, সোমবার ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৫:৪৬ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

নড়াইলে আউশের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা


০৯ আগস্ট ২০১৭ বুধবার, ১২:২৫  পিএম

নতুনসময়.কম


নড়াইলে আউশের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

চলতি মৌসুমে জেলার তিন উপজেলায় আউশ ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। এ মৌসুমে জেলায় মোট ছয় হাজার ৪১৯ হেক্টর জমিতে আউশ ধান চাষ হয়েছে। আবাদ করা জমিতে ১৪ হাজার ৫০৬ মেট্রিক টন ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। আগাম বোনা জমির আউশ ধান পেকে উঠেছে। জেলার কোথাও কোথাও ধান কাটা শুরু হয়েছে বলে কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এ বছরের বর্ষা মৌসুম শুরুতে প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ায় আউশ ধানের উৎপাদন ভালো হয়েছে। এ কারণে এ বছর আউশ ধান ফলাতে কৃষকের কোন বেগ পেতে হয়নি বলে কৃষি কর্মকর্তা ও কৃষকরা জানিয়েছেন।

কৃষি বিভাগ সূত্রে আরো জানা যায়, চলতি মৌসুমে নড়াইল সদর উপজেলায় দুই হাজার ৬৯ হেক্টর জমিতে চার হাজার ৬৭৫ মেট্রিক টন আউশ ধান, কালিয়া উপজেলায় এক হাজার ৯৬০ হেক্টর জমিতে চার হাজার ৪২৯ মেট্রিক টন এবং লোহাগড়া উপজেলায় দুই হাজার ৩৯০ হেক্টর জমিতে পাঁচ হাজার ৪০১ মেট্রিক টন আউশ ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

নড়াইল সদর উপজেলার মাইজপাড়া গ্রামের কৃষক রহমান মিয়া জানান, কৃষকরা এখন তাদের জমিতে উৎপাদন হওয়া পাকা আউশ ধান কাটার অপেক্ষায় রয়েছেন। আউশ ধানের পাকা সোনালি বর্ণের শীষ সর্বত্র দোল খাচ্ছে। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহ হতে পাকা আউশ ধান কাটার মৌসুম পুরোপুরিভাবে শুরু হবে বলে তিনি জানান।

লোহাগড়া উপজেলার মরিচপাশা গ্রামের কৃষক কামরুল ইসলাম জানান, আউশ ধানের চাল সুস্বাদু ও মিষ্টি। এ কারণে বাজারে এ চালের চাহিদা সব সময় বেশি থাকে। এ ধানের চাল দিয়ে বিভিন্ন ধরনের পিঠা তৈরি হয়। তাই প্রতিবছর আগ্রহ সহকারে তারা এ ধান চাষাবাদ করে। এ বছর পর্যাপ্ত আগাম বৃষ্টির কারণে আউশ বপনের শুরু থেকে এ পর্যন্ত এ ধান চাষাবাদে কৃষকদের কোন বেগ পেতে হয়নি বলে তিনি জানান।

নড়াইল কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ শেখ আমিনুল হক জানান, আউশ ধান চাষে কৃষকদের আগ্রহ সৃষ্টির জন্য প্রতি বছরের মতো এ বছরও তাদের কৃষি প্রণোদনা দেয়া হয়েছে। চলতি আউশ মৌসুমে জেলার মোট এক হাজার ৭৬০ কৃষককে কৃষি প্রণোদনা হিসেবে বিনামূল্যে বীজ, সার এবং আগাছা দমন ও সেচ সহায়তা হিসেবে নগদ টাকা প্রদান করা হয়েছে। এ জেলার মাটি ও আবহাওয়া আউশ ধান চাষের জন্য উপযোগী। তাছাড়া কৃষি কর্মকর্তাদের নিয়মিত তদারকি এবং কৃষকদের আগ্রহে প্রতিবছর এ জেলায় আউশের চাষ বাড়ছে বলে তিনি জানান।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: