১৪ আষাঢ় ১৪২৪, বুধবার ২৮ জুন ২০১৭, ১১:১৮ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

তিন ছাত্রীকে নেশা খাইয়ে শ্লীলতাহানি করা শিক্ষকের আরেক বর্বরতা


১৯ জুন ২০১৭ সোমবার, ০১:৫৮  পিএম

নতুনসময়.কম


তিন ছাত্রীকে নেশা খাইয়ে শ্লীলতাহানি করা শিক্ষকের আরেক বর্বরতা

পেশা শিক্ষাক হলেও বাস্তবতায় শিক্ষার বালাই টুকুও নেই। বাইরে থেকে ফেরার পর ঘরে এসে স্ত্রী নির্যাতন। এবার ছাত্রীদের নেশাদ্রব্য খাইয়ে শ্লীলতাহানির অভিযোগও উঠল তার বিরুদ্ধে। বর্বর শিক্ষকের নাম মুসলিম সরদার মিশু।

যৌতুকের দাবি আইনজীবী স্ত্রীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করায় কলেজ শিক্ষক স্বামী মুসলিম সরদার মিশুকে শনিবার রাতে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে স্থানীয়রা। এরপর তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওয়ালিউল্যাহ ওলি জানান, স্ত্রী নির্যাতনের অভিযোগে ক্ষুব্ধ জনতা মুসলিম সরদার মিশুকে আটক করে থানায় খবর দেয়। আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাকে থানায় নিয়ে আসি।

রোববার ওই শিক্ষকসহ ৫ জনকে আসামি করে চাঁদপুর মডেল থানায় মামলা করেছেন নির্যাতিতা স্ত্রী অ্যাডভোকেট কুলসুমা বেগম। পরে রোববার বিকেলে আটককৃত শিক্ষক মুসলিম সরদার মিশুকে চাঁদপুর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

প্রসঙ্গত, মুসলিম সরদার মিশু চাঁদপুর সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী শিক্ষক। তার বিভাগের তিন ছাত্রীকে নেশাদ্রব্য খাইয়ে শ্লীলতাহানির অভিযোগে তাকে শাস্তিমূলক বদলি করা হয় লালমনিরহাট পাটগ্রাম জসমুদ্দিন সরকারি কলেজে।

লালমনিরহাট থেকে চাঁদপুর আসার জন্য মিশু তার স্ত্রী অ্যাডভোকেট কুলসুমা বেগমের কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। এ টাকা না দেয়ায় শিক্ষক মিশু চাঁদপুরের ষোলঘরস্থ ভাড়া বাসায় স্ত্রীর ওপর মধ্যযুগীয় কায়দায় দুই দফা নির্যাতন চালায়। নির্যাতিত স্ত্রীর ছবি ফেসবুকে ভাইরালও হয়।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: