৪ পৌষ ১৪২৪, মঙ্গলবার ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ২:৩১ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

ঢাকার পাশে কাশফুলের ছোঁয়া


১০ অক্টোবর ২০১৭ মঙ্গলবার, ১২:৩৯  পিএম

নতুনসময়.কম


ঢাকার পাশে কাশফুলের ছোঁয়া

শেষ হতে চলেছে শরৎকাল। এরই মধ্যে বিদায় নিয়েছে বর্ষা। যদিও দেশের বিভিন্ন স্থানে দেখা মিলছে বৃষ্টির। উঁকি মারছে শীত। আকাশে ভেসে বেড়াচ্ছে সাদা মেঘের ভেলা। ডিঙি নৌকার মতো খণ্ড খণ্ড মেঘের নিরুদ্দেশ যাত্রা। সেই সাথে কাশফুল ‘সাদা ডালি’ সাজিয়ে বসে আছে তার মোহময়ী পরশ নিয়ে।

বাতাসে ফুলগুলোর ছোঁয়ায় যেন হারিয়ে নিয়ে যাবে অচেনা এক স্বপ্নরাজ্যে। কথাও বলছে মনে হবে আপনার কাছে।

নাগরিক ব্যস্ততার মাঝেও একটু সময় করে ঘুরতে আসতে পারেন কাশফুলের রাজ্য থেকে। ঢাকাতেই রয়েছে কাশফুলের শুভ্ররাজ্য।

পরিবার কিংবা প্রিয়জনকে নিয়ে অন্তত একবার ঘুরে আসতে পারেন আপনিও। উত্তরার দিয়াবাড়িতে বন্ধুদের নিয়ে ঘুরতে এসেছেন সাংবাদিক শীথি দিলারা। তিনি বলেন, ‘এককথায় অসাধারণ। ঢাকার মধ্যে যেনো এক কাশফুলের রাজ্য। এখানে এলে যে কারো মন ভালো হতে বাধ্য।’ ঘুরতে এসে এভাবেই নিজের উচ্ছ্বাসের কথা প্রকাশ করেন তিনি।

তিনি বলেন, পিচঢালা পথ ধরে ভেতরের দিকে যতই যেতে থাকবেন; ততই আপনি মুগ্ধ হবেন। রাস্তার দু’পাশে কাশফুলগুলো মাথা নুয়ে আপনাকে স্বাগত জানাবে।

একই সাথে ঘুরতে আসা অপর একজন ইমতিয়াজ মেহেদি হাসান জানান, এই সময়টাতেই কাশফুল দেখা যায়।

দিয়াবাড়ির কাশবনে ঘুরতে আশা ফটোসাংবাদিক উম্মে সালমা লাভলী বলেন, ইট-কাঠের এই শহরে একটু প্রশান্তির দম নেয়ার জন্য তেমন কোনো খোলা জায়গা নেই। রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়িতে শরতের আবহে শুভ্রতার ছোঁয়ায় অনেকটায় হারিয়ে যাওয়া সম্ভব। দিয়াবাড়িতে এলেই মনে হয় প্রকৃতি অনেক কাছের, মানুষের অতি আপনজন।

সতর্কতা :

এতো ভালো লাগা আর সৌন্দর্যের মাঝেও কিছু সতর্কতা অবলম্বন করে ঘুরতে হবে। সন্ধ্যার পর কাশবনের বেশি গভীরে না থাকাই ভালো। কাশফুলে মাঝে মাঝে কিছু পোকা দেখতে পাওয়া যায়। তাই কাশফুলের খুব কাছ থেকে সাবধান থাকবেন, যেন পোকা শরীরে না লাগে। সাঁতার না জানলে বালু নদের পানির কাছাকাছি না যাওয়াই ভালো। আর কোনো কিছু খেলে দাম জেনে খাওয়া উচিত। অনেক হকার পণ্যের গায়ে লেখা দামের চেয়ে বেশি নিয়ে থাকে।

যেভাবে যাবেন :

ঢাকার যেকোনো এলাকা থেকেই দিয়াবাড়ি যেতে পারেন আপনি। মৌচাক থেকে সুপ্রভাত বাসে হাউস বিল্ডিং হয়ে রিকশাযোগেও সোজা দিয়াবাড়ি যেতে পারবেন। তবে বিকল্প পথও আপনার জন্য এর চেয়ে সহজ হতে পারে।

প্রাথমিক নাস্তা সারতে সাথেই নিয়ে যেতে পারেন হালকা কোনো খাবার। এছাড়াও ওখানে কয়েকটি রেস্টুরেন্টে খাওয়া যেতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনাকে টাকার পরিমাণটা বেশিই গুনতে হবে।

সব শেষে সন্ধ্যায় গৌধূলি আকাশের লাল আভায় সাথীদের নিয়ে সেলফিতে স্মরণীয় করে রাখতে পারেন মুহূর্তগুলো।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: