৪ আষাঢ় ১৪২৫, সোমবার ১৮ জুন ২০১৮, ৫:১৭ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

টয়লেটের লাইট চুরি, আমি কী করব?


১৩ মার্চ ২০১৮ মঙ্গলবার, ০৪:১৪  পিএম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

নতুনসময়.কম


টয়লেটের লাইট চুরি, আমি কী করব?
ছবি.নতুনসময়

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, শহরের ৫০ শতাংশ মিনি ডাস্টবিন চুরি হয়েছে, ভেঙ্গে গেছে। অনেকে আবার মিনি ডাস্টবিন নিয়ে ফুলের টপ বানিয়েছে। এমন কী টয়লেটের লাইট বক্স ভেঙ্গে লাইট চুরে করে। তাহলে একজন মেয়র কিভাবে শহর পাহারা দিবে? এমন যদি হয় নাগরিকরা তাহলে কিভাবে শহর পরিষ্কার রাখবো?

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে ডিএসসিসি আয়োজিত ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ ১৭ থেকে ২৩ মার্চ উপলক্ষে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মেয়র বলেন, নগরটাকে কেন আমরা ঘর ভাবছি না। নিজের ঘর সবাই পরিস্কার রাখছি। কিন্তু শহকে অপরিষ্কার করছি প্রতি নিয়ত।

সাঈদ খোকন বলেন, ৪২ স্কোয়ার কিলোমিটার এলাকার ডিএসসিসিতে এক কোটি ৫০ লাখ মানুষের বসবাস। এর মধ্যে আশেপাশের জেলার মানুষদের যাতায়াত রয়েছে। পৃথিবীর সব চেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। অতিরিক্ত জনসংখ্যার জন্য পরিষ্কার রাখতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

আলোচনা সভায় সাড়ে ৪শ স্কুলের শিক্ষকদের প্রতিনিধিরা ছিলেন। এ সময় শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, শিক্ষকরা পাশে না থাকলে কিভাবে সুন্দর শহর গড়বো। আপনারা (শিক্ষক) মানুষ গড়ার কারিগর। আপনারা যদি পরিষ্কার শহর রাখার শিক্ষা না দেন, তাহলে কিভাবে শহর পরিষ্কার রাখবো?

স্কুলের শিক্ষার্থীদের ভাবনায় পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা আনার জন্য শিক্ষকদের কাজ করার অনুরোধ জানান মেয়র।

তিনি বলেন, ডিএসসিসি এলাকায় ২০ লাখ দোকান রয়েছে। এই দোকানের মালিকরা সকাল ১০টার দিকে দোকান পরিস্কার করে ময়লা রাস্তায় ফেলে। তারা যদি রাতে দোকান পরিষ্কার করে যায়, তাহলে ফজরের সময় ডিএসসিসির পরিস্কার কর্মীরা ওই ময়লা নিয়ে যেতে পারে।

এসময় বক্তব্য রাখেন ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপক এয়ার কমোডোর সফিউল আলম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শেখ সালাহউদ্দিন প্রমুখ।

আইআর/এসএ

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: