৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ১৭ নভেম্বর ২০১৭, ১১:৪৫ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

চিটাগংকে ৬ উইকেটে হারাল কুমিল্লা


১৪ নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার, ০৯:৪১  পিএম

নতুনসময়.কম


চিটাগংকে ৬ উইকেটে হারাল কুমিল্লা

তৃতীয় জয় তুলে নিল মোহাম্মদ নবির দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। তামিম ইকবালের প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসকে ৬ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারাল কুমিল্লা।

ব্যাট হাতে এই জয়ে বড় অবদান রাখলেন ইমরুল কায়েস (৪৫) এবং জশ বাটলার (৪৪)। এই দুজনের জুটিতেই মূলতঃ জয়ের পথে আসে শুরুতে বিপদে পড়া কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। ছক্কা মেরে দলকে জেতান স্যামুয়েলস।

১৪০ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। ইনজুরি কাটিয়ে ফেরা তামিম ইকবাল ১০ বলে ৪ রান করে মুনারাবিরার বলে শুভাশীষ রায়ের তালুবন্দি হন। দলীয় ৭ রানে প্রথম উইকেট পতনের পর হাল ধরার চেষ্টা করেন লিটন দাস এবং ইমরুল কায়েস। ২০ বলে ২১ রান করা লিটন মুনারাবিরার দ্বিতীয় শিকার হলে ভাঙে প্রতিরোধ।

তবে ইমরুল কায়েস আর জশ বাটলারের ব্যাটে ভালোভাবেই জয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল কুমিল্লা। ৩৬ বলে ৩ চার এবং ১ ছক্কায় ৪৫ রান করে সানজামুলের বলে তানবীর হায়দারের তালুবন্দী হন ইমরুল।

এর আগে পায়ের পেশিতে টান লাগায় কিছুক্ষণ মাঠেই চিকিৎসা নিতে হয়েছিল তাকে।

মারলন স্যামুয়েলস এসেই ছক্কা হাঁকান। এরপর নিজের দ্বিতীয় ছক্কা হাঁকিয়ে ৩১ বলে ৪৪ রান করে সানজামুলের দ্বিতীয় শিকার হন ইংলিশ তারকা জশ বাটলার। ততক্ষণে অবশ্য জয়ের বন্দরে প্রায় পৌঁছে গেছে কুমিল্লা। ১৬ বলে দরকার ছিল ৬ রান। ১১ বল হাতে রেখেই ছক্কা মেরে দলকে তৃতীয় জয় এনে দেন ক্যারিবীয় হার্ডহিটার মারলন স্যামুয়েলস।

এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৩৯ রান সংগ্রহ করে চিটাগং ভাইকিংস। দলকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার এবং লুক রনচি। তরুণ পেস বোলিং অল-রাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনের বলে রনচি (৩১) এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে পড়লে ভাঙে ৪৬ রানের উদ্বোধনী জুটি। এরপরই কুমিল্লার বোলারদের তোপের মুখে পড়ে মিসবাহ-উল-হকের দল।

একপ্রান্ত আগলে খেলছিলেন অপর ওপেনার সৌম্য সরকার। মুনারাবিরার সঙ্গে তার জুটিটাও বেশ জমে গিয়েছিল। ৩২ বলে ২ চার ১ ছক্কায় ৩০ রান করা সৌম্যকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন অধিনায়ক নবি। মুনারাবিরাকেও (১৯) বোল্ড করে দেন কুমিল্লার আরেক আফগান রশিদ খান। রানের চেয়ে বেশি বল খেলা (২৪ বলে ২০) সিকান্দার রাজা শিকার হন ডোয়াইন ব্র্যাভোর। অধিনায়ক মিসবাহ সমালোচনার কারণেই কিনা আজ ১১ বলে ১৬ রানে অপরাজিত ছিলেন। বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন ২টি।

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: