১ শ্রাবণ ১৪২৫, সোমবার ১৬ জুলাই ২০১৮, ৮:৩৯ অপরাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

ক্লান্ত নাগরিককে প্রশান্তি দিবে গুলশানের পার্ক


১৫ মে ২০১৮ মঙ্গলবার, ০৩:৫৬  পিএম

নতুনসময়.কম


ক্লান্ত নাগরিককে প্রশান্তি দিবে গুলশানের পার্ক

ক্লান্ত নাগরিককে প্রশান্তি দেয়ার আদলে গড়ে তোলা হচ্ছে গুলশান ২ এ অবস্থিত রাষ্ট্রপতি বিচারপতি সাহাবুদ্দিন আহম্মদ পার্কটি। মঙ্গলবার (১৫ মে) পার্কের আধুনিকায়ন ও উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র ওসমান গনি।

প্রায় ৯ দশমিক ৫ একর জায়গার উপর গড়ে উঠা এই পার্কটিতে থাকবে আলাদা খেলার জায়গা,বাইসাইকেল লেন, বয়স্ক, শিশু-কিশোর,নারীদের জন্য পৃথক জায়গা, লাইব্রেরি, জিমনেশিয়াম।

এখানেই শেষ নয় নিজের প্রতিবিম্ব দেখতে দেখতে পানির পাশ দিয়ে হেটে যাওয়া জন্য থাকবে আলাদা লেন, পানির ওপর ঝুলন্ত ওয়াক ওয়ে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য থাকবে উন্মুক্ত মঞ্চ। খাবের জন্য থাকবে ছোট্র ক্যান্টিনও, নামাজের জন্য আলাসা স্থানও রাখা হয়েছে পার্কটিতে।সব মিলিয়ে একজন ক্লান্ত নাগরিক যাত্রা পথে পার্কটি প্রবেশ করে কিছু সময় কাটালে মনে আসবে আলাদা প্রশান্তি বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ওসমান গনি বলেন, নাগরিকদের সুবিধার্থে আমরা পার্ক ও খেলার মাঠের কাজ হাতে নিয়েছি। সিটি কর্পোরেশন বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ একার পক্ষে একটি পার্কের পরিবেশ-পরিচ্ছন্নতা ঠিক রাখা সম্ভব নয় তাই প্রতিটি নাগরিককে মনে করতে হবে এই সম্পদ আমার। সেই দৃষ্টিকোন থেকেই পার্কের প্রতি নজর রাখতে হবে।

আধুনিকায়ন ও উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্যানেল মেয়র বলেন, পার্কের এত সুন্দর একটি কাজ এটা বাস্তবায়ন করবেন আপনারা।তাই কোন গাফেলতি,চল চাতুরি করবেন না। যথাযথ মানের দিকে খেয়াল রেখে সঠিক সময়ে কাজ শেষ করবেন অন্যথায় আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিবো।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে নগর পরিকল্পনাবিদ ইকবাল হাবিব বলেন, আমাদের নগরি পাকা এক নগরীতে পরিনত হয়েছে, ফলে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। উত্তপ্ত হয়ে উঠগে পুরো শহর। সবুজ হারাচ্ছি আমরা। আমাদের সন্তানরা বদ্ধ ঘরে বেড়ে উঠছে ইলেকট্রনিক ডিভাইস হায়ে নিয়ে। তাদের জন্য আমাদের আগামীর জন্য সবুজ পার্ক, খেলার মাঠের খুবই প্রয়োজন। এসব দিক মাথায় রেখে সুন্দর করে পার্ক-খেলার মাঠ সাজানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এই পার্কের কাজ শুরু হয়েছে, কাজ চলাকালীন সময়ে নাগরবাসীকে পার্কটি না ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিল মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেসবাহুল ইসলাম সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আইআর/এমএ

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: