৭ আষাঢ় ১৪২৫, শুক্রবার ২২ জুন ২০১৮, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
bangla fonts
facebook twitter google plus rss
Natun Somoy logo

এক খন্ড আকাশ ছিলো


০৭ মার্চ ২০১৮ বুধবার, ০৯:৫৪  এএম

কাশফিয়া আঁখি

নতুনসময়.কম


এক খন্ড আকাশ ছিলো

বহু বিকেল কেটেছে আমার এইখানে বসে।

এইখানে বসে আমি কত কথা বলেছি ঘাসফুলের সাথে,

সাদা বকের সাথে,

লাজুক কুহক আর মাছরাঙার সাথে।

 

এইখানেই ছিলো বাহারী প্রজাপতি আর ভোমরার গান। এইখানেই ছিলো সর্ষের ক্ষেত মৌমাছিরা পেতো প্রাণ। এখানেই আমার আলাপ ছিলো কোকীলের সাথে,

লিকিলিকে কমলীর গা জুড়ে হেসে থাকা বেগুনী ফুলের সাথে।

 

কথা হতো একাকীত্বতায় ডুবে থাকা বাঁশ ঝাড়ের সাথে।

ডালপালা ছড়িয়ে বিশ্রাম নেয়া কালকুটে গাবগাছটার সাথে। তার আগত পাতা অনাগত স্বপ্নের সুরে গেয়ে যেত কত গান।

 

এইখানে এই বাসের পুরনো টায়ারে বসে আমি আকাশ দেখেছি,সন্ধ্যা তারা গুনেছি, তোমাকেও ভেবেছি কোটি সময়ের অনুকণায় সেলাই করে করে।

ভাবনারা বলেছে,পুরনো  চাকার মতো একদিন আমারো মিলবে অখন্ড অবসর। পরে রব অবহেলার ধূসরতা মেখে গায়।যেমন একদিন এই চাকাগুলো পৌঁছে দিয়েছিলো তোমাকে, আমাকে, আমাদেরকে আমাদের স্বপ্নের খুব কাছে।

 

গাঙচিল ছিলো না তো এইখানে , এই আমার জ্যামিতিক চর্তুভূজের এক খন্ড আকাশে সোনা রোদ ছিলো ,

মুখভারী করা মেঘও ছিলো বৈশাখের বিকেলে ।

 

এইখানে চাতকের আনাগোনা ছিল খুব।

শালিকের স্বমস্বর কোলাহল ছড়িয়ে যেত দুপুরের সারা গায়ে। দোয়েল,হলুদিয়াও আসতো অলস বেলায় এই নিরালায়।

 

এইখানে এই বুনো ফুলের ঝোপের ভেতর ছিলো জোনাকের বসত ভিটে।

রাত নামলেই আমাদের গল্পপ্রাণ পেত ঝিঁ ঝিঁ পোকাও মাততো উল্লাসে।

এইখানেই গভীর রাতে চকচকে চোখে উঁকি দিত দলবদ্ধ পশু পন্ডিত।

কখনোবা গলা ছেড়ে জানান দিত আগমনীর্বাতা।

 

এইখানেই ছিলো কত ডোরা,গোখড়ার নিরাপদ আশ্রয়।

বেজি,গুইসাপ তাড়াও চলতো র্নিদ্বিধায়।

 আরো ছিল থোকা থোকা বেত ফল,খয়েরি রঙা খেঁজুর,সোনালী পাকা গাব ।

ফসলী এইমাঠ গা ধুয়ে নিতো বর্ষার জলে ।

শালুক শাপলায় সাজাতো শরীর থাকতো আঁচল মেলে ।

 

এইখানে আজ আর কিছু নেই , চাকত,কুহক,সাদাবক,নীলপদ্ম নেই।

সেসব আজ পরেছে চাপা মুরুর তপ্ত বালুর কবরে।

কথাহীন ওদের কান্না আজ পরছে ঝরে কুয়াশার বুকে।

আমার টুকরো আকাশও ঢেকে গেছে উঁচুদালানের ছাদে।

 ঘর হারনো পাখিরা সব অদূর বনে কাঁদে।

ভূমিগ্রাসীর রাক্ষুসেরা কেড়ে নিয়ে যাচ্ছে আমার সকল অবুজ সুবজ ভাললাগার ভালোবাসাটুকু।

আর আমি শেকড় বাঁকড় যুক্ত এক মানুষ গাছ হয়ে নিরবে দেখে যাচ্ছি বালুর সাগরে ডুবে যাচ্ছে হুলুদ বুনো ফুলেরা।

বিএস

নতুনসময়.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: